বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৭:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মাদারীপুরে ডিবি পুলিশের জালে ৫৫০ পিচ ইয়াবা সহ আটক ৩ জন ফরিদপুরে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেটকে আটক ঈদে ঘরমুখো মানুষের হয়রানী ও টিকেট কালোবাজারী বন্ধে পুলিশ ও র‌্যাবের সাব-কন্ট্রোল রুম চালু চাঁপাইনবাবগঞ্জে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া মাহফিল নড়াইলে মোটরসাইকেল-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত আরোহী গুরুতর আহত ফরিদপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু লোহাগড়ায় হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসির আদেশ ফরিদপুর- ভাংগা সড়কে ট্রাক ও পিকআপ সংঘর্ষ, আহত ২ রংপুরে দুলা ভাইয়ের হাতে শ্যালক খুন নড়াইল জেলা পুলিশের অভিযানে গত ২৪ ঘন্টায় বিভিন্ন অপরাধে গ্রেফতার ১৪ জন

নাটোরের গুরুদাসপুরে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের চলছে শোডাউন ও গণসংযোগ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ৮৫ Time View

 মোঃ জামিল হায়দার (জনি) নাটোর জেলা প্রতিনিধি

প্রতিবারই নাটোরের গুরুদাসপুর পৌরসভার নির্বাচন প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত হয়ে এসেছে। কিন্তু এবার প্রথম ধাপের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণায় নাটোরের কোনো পৌরসভায় নির্বাচন হচ্ছেনা। তারপরেও আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে গুরুদাসপুরে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারণা ও গণসংযোগের পাশাপাশি মিছিল আর স্লোগানের মধ্যদিয়ে চলছে মোটরসাইকেল মহড়া। উঠান বৈঠক থেকে শুরু করে পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রার্থীদের সমর্থনে হচ্ছে নির্বাচনী মতবিনিময় সভা। বিশেষ করে আওয়ামীলীগ দলীয় অভ্যন্তরীন কোন্দল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক মো. আব্দুল কুদ্দুস পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম বিপ্লবকে মেয়র প্রার্থী ঘোষনার পর দলীয় নেতাকর্মিরা দুইগ্রুপে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। ফলে একদিকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও দুইবারের নির্বাচিত বর্তমান পৌর মেয়র মো. শাহনেওয়াজ আলী গ্রুপ অপরদিকে সাংসদ আব্দুল কুদ্দুসের ঘোষণাকৃত মেয়র প্রার্থী আরিফুল ইসলাম বিপ্লব গ্রুপের মধ্যে চলছে পাল্টাপাল্টি জনসমাবেশ এবং মোটরসাইকেল মহড়া। বুধবার বিকেলে মেয়র প্রার্থী আরিফুল ইসলাম বিপ্লবের নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মিরা গণজোয়ার সৃষ্টি করে প্রায় এক হাজার মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দিয়েছেন পৌর এলাকজুড়ে। আধুনিক পরিচ্ছন্ন নগর, পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা, অতিরিক্ত কর আদায় থেকে মুক্তিলাভ ও নাগরিক সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে পৌরসভার ভোটারদের সাথে কুশল বিনিময়সহ কোলাকুলি করে ভোট ও দোয়া চাইছেন প্রার্থী বিপ্লব। হাজারো জনতার সামনে হাত তুলে চমক দিচ্ছেন এই মেয়র প্রার্থী। সেই সাথে বিভিন্ন রকমের হাজার হাজার গাছের চারা পৌরবাসীর মাঝে বিতরণ করতে দেখা যায় এই মেয়র প্রার্থীকে। একইদিনে রাত ৮টায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মো. শাহনেওয়াজ আলীর নেতৃত্বেও নৌকার স্লোগান দিয়ে পৌর এলাকাজুড়ে বিশাল মোটরসাইকেল মহড়া দিতে দেখা যায়। এর আগে চাঁচকৈড় দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মি ও সমর্থকদের উদ্দেশ্যে মেয়র শাহনেওয়াজ বলেন, কারো কোনো প্রোপাগান্ডাতে কোনো কাজ হবেনা। দলীয় নেতাকর্মি ও পৌরবাসী আমার সাথে আছেন। এবারো দলীয় মনোনয়ন আমিই পাবো। সুষ্ঠুভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হলে এবারো বিপুল ভোটের ব্যবধানে মেয়র নির্বাচিত হব ইনশাল্লাহ। এসময় উপস্থিত নেতাকর্মি ও সমর্থকরা মুহুর্মুহু করতালির মাধ্যমে তাকে অভিনন্দন জানান। শুধুমাত্র মাস্ক পরিধান করেই ৮০ শতাংশ করোনা প্রতিরোধ করা সম্ভব। তাই মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় পৌরসভার বিভিন্ন মোড়ে ও রাস্তাঘাটের পথচারী, রিক্সা, ভ্যানচালক, শ্রমিকসহ সবশ্রেণির মানুষের মাঝে ৫ হাজার মাস্ক বিতরণ করেন পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী। জনগণের কাছে দানবীর খ্যাত মেয়র শাহওনয়াজ এ পর্যন্ত নিজের অবস্থান ও জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছেন। গরিব, দুখি, খেটে খাওয়া মেহনতি মানুষের বন্ধু হয়ে দুইবার পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। করোনাকালীন সময়ে ‘মেয়র শাহনেওয়াজ আলী জনকল্যান ট্রাস্ট’ খুলে অসহায় ও ঘরে থাকা মানুষের মাঝে খাবার ও চাল বিতরণ করেছেন। আবার পৌরসভার উন্নয়ন অব্যাহত রাখায় তার আলাদা ভোট ব্যাংক তৈরি হয়েছে পৌরসভায়। তবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে থেমে নেই অন্যান্য প্রার্থীরাও। নতুন মুখ হিসেবে ডাঃ মোহাম্মাদ আলী অনেক আগেই নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করায় পৌরবাসী প্রথমে মেয়র প্রার্থী হিসেবে তাকেই চিনে আসছেন। পৌর সদরের আনোয়ার হোসেন চক্ষু ও ডায়বেটিস হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোহাম্মাদ আলী বিনামুল্যে চক্ষু ও ডায়বেটিস রোগিদের চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিনামূল্যের স্বাস্থ্য ক্যাম্প, করোনাকালীন সময়ে মানুষদের সাহায্য সহযোগিতা প্রদান করছেন। নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে নিজের অবস্থান ঠিক রেখে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। মানুষের পাশে থেকে কর্মি সমর্থকদের নিয়ে মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে তিনিও জনগণের মাঝে আলোড়ন সৃষ্টি করে চলেছেন। পৌরবাসীর কাঙ্খিত সেবা নিশ্চিত করতে দলীয় মনোনয়ন না পেলেও নির্বাচন করবেন বলে জানান তিনি। অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে এবারের পৌর নির্বাচনে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিয়ার রহমান বাঁধন নিজেকে জনগণের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করায় আওয়ামীলীগের একাংশসহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মিরা তার পক্ষে ভোট চাইতে শুরু করেছেন। মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে নির্বাচনী মাঠ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করে তুলেছেন বাঁধন। করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন মোড়ে ও রাস্তাঘাটের পথচারী, রিক্সা, ভ্যানচালক, শ্রমিকসহ সবশ্রেণির মানুষের মাঝে মাক্স বিতরণ করছেন। তিনিও নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন। জনগণের হাতে তার বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের ছবিসংযুক্ত পোষ্টার শোভা পাচ্ছে। জনতার পৌরসভায় পরিণত করতে পৌর নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হলে মাদকমুক্ত সমাজ গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করে যুব উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের সুযোগ প্রসারিত করতে চান বলে জানান তিনি। এসব প্রচারণায় মেয়র প্রার্থীরা জনগণের মাঝে পৌরসভার উন্নয়ন নিয়ে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। সেই সাথে একে অপরের ভুল-ত্রুটি জনগণের সামনে তুলে ধরার ফলে এবারের পৌর নির্বাচন অন্যান্য নির্বাচনের তুলনায় ব্যাপক প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে বলে ধারণা করছেন পৌরবাসী।

ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category