রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৮:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
প্রস্তাবিত বাজেটে জনগণের জীবনযাত্রার উন্নয়নে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে মৌলভীবাজারে বন্যায় ৪৫০টি গ্রাম প্লাবিত: খোলা হয়েছে ৯৮টি আশ্রয় কেন্দ্র সুনামগঞ্জ জেলার বন্যা উপদ্রুত এলাকা পরিদর্শনে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী রংপুরের বাজারে উঠতে শুরু করেছে সুস্বাদু হাঁড়িভাঙা আম মাদারীপুরে ডিবি পুলিশের জালে ৫৫০ পিচ ইয়াবা সহ আটক ৩ জন ফরিদপুরে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেটকে আটক ঈদে ঘরমুখো মানুষের হয়রানী ও টিকেট কালোবাজারী বন্ধে পুলিশ ও র‌্যাবের সাব-কন্ট্রোল রুম চালু চাঁপাইনবাবগঞ্জে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া মাহফিল নড়াইলে মোটরসাইকেল-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত আরোহী গুরুতর আহত ফরিদপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

মা-মেয়েকে ‘ধর্ষণ’, আওয়ামী লীগ নেতা গ্রেপ্তার

অনলাইন রিপোর্ট
  • Update Time : বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৭৯ Time View

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ঘরের সিঁধ কেটে ভেতরে ঢুকে মা-মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য আবুল খায়ের মুন্সি মেম্বারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত পরিচয় আরও একজনকে আসামি করে চরজব্বার থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় জেলা শহরের মাইজদী এলাকা থেকে আবুল খায়ের ওরফে মুন্সি মেম্বারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান জানান, সোমবার রাত পৌনে ২টার দিকে উপজেলার চর ওয়াপদা ইউনিয়নের চরকাজী মোখলেছ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার ৫০ বছর বয়সী আবুল খায়ের চর কাজী মোখলেছ গ্রামের গোলাপ রহমানের ছেলে। তিনি ওয়াপদা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং ওই ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য।

এ মামলার আরেক আসামি একই এলাকার বশির আহমেদের ছেলে মো. হারুন (৪০)। তাকেসহ বাকি আসামিদের ধরতে অভিযান চলছে বলে জানান এসপি।

এদিকে সকালে পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিজয়া সেনসহ সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা ভুক্তভোগী মা-মেয়েকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

দুপুরে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাদের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে মায়ের ৩০ ও তার মেয়ের বয়স ১২ বছর।

পুলিশ সুপার বলেন, “ঘটনার সময় ওই গৃহবধূর স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। এ সময় এক ব্যক্তি টিনের ঘরের সিঁধ কেটে ভেতরে ঢুকে ঘরের দরজা খুলে দিলে আরও দুজন প্রবেশ করে। ওই নারী টের পেয়ে চোর বলে চিৎকার করলে ওই তিনজন ওড়না ও কাপড় দিয়ে তার হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলে।

“এ সময় পাশের ঘরে থাকা তার মেয়েরও হাত-মুখ বেঁধে ফেলে। এরপর দুজন মাকে ও একজন মেয়েকে ধর্ষণ করে। পরে তারা ঘর থেকে এক জোড়া কানের দুল, দুটি নাকফুল ও নগদ ১৭ হাজার ২২৫ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়।”

খবর পেয়ে ভুক্তভোগী নারীর ভাই জাতীয় জরুরি সেবা- ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে চরজব্বর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে আলামত জব্দ করে বলে আসাদুজ্জামান জানান।

ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category