রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
প্রস্তাবিত বাজেটে জনগণের জীবনযাত্রার উন্নয়নে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে মৌলভীবাজারে বন্যায় ৪৫০টি গ্রাম প্লাবিত: খোলা হয়েছে ৯৮টি আশ্রয় কেন্দ্র সুনামগঞ্জ জেলার বন্যা উপদ্রুত এলাকা পরিদর্শনে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী রংপুরের বাজারে উঠতে শুরু করেছে সুস্বাদু হাঁড়িভাঙা আম মাদারীপুরে ডিবি পুলিশের জালে ৫৫০ পিচ ইয়াবা সহ আটক ৩ জন ফরিদপুরে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেটকে আটক ঈদে ঘরমুখো মানুষের হয়রানী ও টিকেট কালোবাজারী বন্ধে পুলিশ ও র‌্যাবের সাব-কন্ট্রোল রুম চালু চাঁপাইনবাবগঞ্জে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া মাহফিল নড়াইলে মোটরসাইকেল-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত আরোহী গুরুতর আহত ফরিদপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

কম ঘুমে ত্বকের সমস্যা, জেনে নিন সমাধান

অনলাইন ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬৪১ Time View

ঘুমের ত্বকের সম্পর্ক রয়েছে। চোখের নিচে কালি দেখলেই বলে দেয়া যায়, ঘুম কম হয়েছে! ঘুম কম হলে ত্বকে ক্লান্তভাব ফুটে ওঠে। আমাদের সচল ও সজীব রাখার জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ঘুম। ঘুম ভালো হলে সারাদিন নিজেকে চাঙ্গা মনে হয়, পুনরুজ্জীবিত হয়ে ওঠে আমাদের ত্বকও। ঘুমের সমস্যা আমাদের ত্বককে প্রভাবিত করতে পারে; ব্রণ, ত্বক শুকিয়ে যাওয়া, ত্বকে অ্যালার্জি ইত্যাদির মতো বিভিন্ন সমস্যাগুলোকে বাড়াতে পারে। বোল্ডস্কাই জানাচ্ছে ঘুম কম হলে তা ত্বকে কীভাবে প্রভাব ফেলে-

যখন পর্যাপ্ত ঘুম না হয় তখন আমাদের ত্বক উজ্জ্বলতা হারিয়ে ফেলে এবং নিস্তেজ ও শুষ্ক হয়ে যায়। কারণ ঘুমের অভাবে করটিসলের মাত্রা বৃদ্ধি করে। এটি একটি হরমোন যা, ত্বকে প্রদাহ সৃষ্টি করে এবং ত্বককে নিস্তেজ করে তোলে।

নিদ্রাহীনতার একটি বড় প্রভাব হলো – ত্বকে ব্রণ, পিম্পল ইত্যাদি হওয়া। ঘুমের অভাব প্রতিরোধ ক্ষমতাকে দুর্বল করে দেয় এবং এর ফলে ত্বকে ব্রণ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বেড়ে যায়। এছাড়াও, ঘুমের অভাবে ত্বকের প্রদাহ বৃদ্ধি পায়।

ঘুমের সমস্যার কারণে ত্বকের ধরনও খারাপ হতে পারে। সুতরাং, আপনি যদি ব্রণ বা অন্য কোনো ত্বকের সমস্যায় ভুগে থাকেন তবে আপনার ঘুমের বিষয়ে আরও সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। রাতে ভালো ঘুম হলে ত্বক দ্রুত নিরাময় হবে।

ত্বককে সতেজ করতে এবং স্বাস্থ্যকর রাখতে সঠিক ঘুম জরুরি। কম ঘুম ত্বকে কোলাজেনের উৎপাদন হ্রাস করে এবং ত্বকের বার্ধক্যজনিত লক্ষণ ফুটে উঠতে পারে।

চোখের নিচের অংশ সংবেদনশীল তাই এটি সহজেই আক্রান্ত হয়। ঘুমের অভাব হলে তা সাধারণত চোখের নিচের অংশেই প্রতিফলিত হয়। সাধারণত চোখের তলায় কালি বেশি দেখা যায়। এটি আপনার পুরো চেহারাকে নষ্ট করতে পারে, তাই এগুলি হালকাভাবে নেয়া উচিত নয়।

ঘুমের সমস্যা আপনার ওজনকে প্রভাবিত করতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, ঘুমের অভাব স্থূলতার সমস্যা বাড়িয়ে তোলে। কারণ, ঘুমের অভাব আরও বেশি ক্ষুধার্ত করে তোলে। এসব কিছু আমাদের ওজন বাড়াতে পারে।

ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category