1. alokitoj@gmail.com : Sobuj Bala : Sobuj Bala
  2. alokitojanapadbd@gmail.com : Alokito Janapad : Alokito Janapad
  3. jmitsolution24@gmail.com : support :
মায়ের কানের দুল বিক্রি করে পরিক্ষা - Alokito Janapad
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভিন্ন ধর্মের যুগলের প্রেমে বাধা; চুল কেটে শাস্তি মির্জাপুরে গোড়াই হাইওয়ে থানার উদ্যোগে জাতীয় সড়ক দিবস-২০২১পালিত পিরোজপুরের স্বরুপকাঠীতে ‘সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা’ কর্মসূচি পালন রাজৈরে নাম পরিচয়হীন মুখ থেথলানো যুবকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার জাতির পিতার সমাধিতে আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দের শ্রদ্ধা নিবেদন গোপালগঞ্জে পাওনা টাকা চাওয়ার জেরে এক ব্যক্তিকে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা লক্ষ্মীপুর প্রেসক্লাবের সামনে মসজিদের জমিতে ভবন নির্মাণ বন্ধে মানববন্ধন সুজানগরে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিশেষ আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক সভা ভারতের করোনার টিকা নেওয়া হয়েছে ১০০ কোটি মানুষের; দাবি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রলায়ের পথিকৃৎ প্রকাশনী এর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেন কথাসাহিত্যিক ও কবি শফিক রিয়ান

মায়ের কানের দুল বিক্রি করে পরিক্ষা

অনলাইন ডেস্ক
  • Update Time : বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৭৩ Time View

আজ থেকে প্রায় ১২ বছর আগের কথা। আমি তখন কলেজে পড়ি। হঠাৎ কলেজের ফরম ফিলাপে বেশ কিছু টাকা দরকার পড়ে। বাবা স্কুলের একজন সাধারণ শিক্ষক ছিলেন। যে টাকা সম্মানী পেতেন তা দিয়ে আমা’র আর আমা’র ভাইয়ের পড়াশোনা চালানো বেশ কঠিন হয়ে পরে।

আর যখন কোন বিশেষ পরিমাণ টাকার দরকার পড়তো তখন জমি বিক্রি ছাড়া উপায় ছিলো না। আবার জমিও যে খুব বেশি ছিলো তা নয়। টাকার খুব জরুরি দরকার। খুব ক্রাইসিস চলছিলো। বাবা অনেক চেষ্টা করেও

জমি বিক্রি করতে পারলেন না। কিছুটা নিরাশ লাগলো বাবাকে। তাহলে কি এবার আমা’র ছে’লের ফরম ফিলাপ হবে না? বাবার চোখে মুখে বিষগ্নতা। ফরম ফিলাপ এর আর মাত্র এক দিন বাকি। কি করা যায় তা ভেবে নিশ্চুপ আমা’র বাবা।হটাৎ আমা’র মা বাবার কাছে আসলেন আর তার কান থেকে দুটো সোনার গহনা খুলে বাবার হাতে তুলে দিলেন আর বললেন দ্রুত বিক্রি করে ফরম ফিলাপ করতে। বাবা বিক্রি করে আমাকে টাকা দিলেন আর তার পরদিনই আমি ফরম ফিলাপ করলাম। সে দিন মা তার

শখের জিনিসগুলো অবলীলায় দিয়েছিলেন আমা’র ভবিষ্যতের জন্য। আমি সে দিন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে আমা’র মায়ের স্বপ্নের চাকুরীর প্রথম মাসের বেতন দিয়ে মায়ের জন্য এ রকমই গহনা কিনে দিবো। তাই গত ০৩.০১.২০১৯ তারিখে ময়মনসিংহ থেকে প্রথম মাসের বেতন দিয়ে মাকে না জানিয়েই গহনা কিনে নিলাম। মাকে বলিনি, কারণ বললে নিশ্চিত না করতো। মা আমা’র হাতে তার সেই চির চেনা সোনার ঝুমকা দুল দেখেই কেঁদে ফেললেন। চোখ দিয়ে গড়িয়ে পানি পড়ছে। মা একটু আড়াল

করেই তার চোখ মুছলেন। আমি নিজ হাতে মাকে সেই দুল পড়িয়ে দেই। সে যে কি আনন্দ। এ এক পরম পাওয়া। এই অনুভূতি ভালোলাগার অনুভূতি। আজ আমি আল্লাহর রহমতে জজ হয়েছি। আল্লাহ অনেক বড় দায়িত্ব দিয়েছেন। আজ আল্লাহ আমা’র মায়ের সে স্বপ্ন পূরণ করেছেন। লাখ লাখ শুকরিয়া তার কাছে। আমি জানি এবং বিশ্বা’স করি কোন কিছুর বিনিময়ে মায়ের প্রতিদান দেয়া যায় না। শুধু নিছক কৃতজ্ঞতা জানানো ছাড়া।

এই ধরণের ঘটনা প্রায় প্রতি মায়ের ক্ষেত্রেই ঘটে। তাই সব মা-দের প্রতি কৃতজ্ঞতা, শ্রদ্ধা আর সীমাহীন ভালোবাসা। মায়ের অবদান অম্লান, অ’তুলনীয়, প্রতিদানহীন। মহান সৃষ্টিক’র্তা সকল মা-কে সুস্থ রাখু’ন আর যাদের মা চলে গেছেন সেই মা-দের শান্তিতে রাখু’ন। আমীন। লেখাঃমনিরুল ইস’লাম সহকারী জজ জে’লা ও দায়রা জজ আ’দালত, জামালপুর।

আলোকিত জনপদ .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© 2021 - Alokitojanapad.com. প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Development by: JM IT SOLUTION